Life Style

সকালে দেরিতে ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস থাকলে এটি দেখুন

এই পৃথিবীতে কিছু কিছু লোক রয়েছে যারা ভাবতেই থাকে, আর কিছু কিছু লোক রয়েছে যারা সকালে ঘুম থেকে উঠে তাদের ভাবনাকে বাস্তবে পরিণত করে নেয়. দেখুন আমরা ছোটবেলা থেকেই আসছি যে early to bed early to rise. কিন্তু সত্যি বলুন আপনি কি এই কথাটিকে follow করেন? আপনার mind কে প্রথমে আপনাকে বলতে হবে যে কেন সকালে ঘুম থেকে ওঠা উচিত? আপনাকে আপনার মাইন্ডকে প্রথমে বোঝাতে হবে যে সকালে ঘুম থেকে উঠলে কি কি বেনিফিটস রয়েছে, তবে গিয়ে সে সকালে ঘুম থেকে উঠবে. তো প্রশ্ন হল সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠলে কি কোনো profit রয়েছে? না নেই?

তো উত্তর হলো সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠার অনেক profit রয়েছে. যদি আপনি সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠা শুরু করে দেন, অর্থাৎ সকালে সময়ে সবাই ঘুমোচ্ছে সেই সময় যদি আপনি ঘুম থেকে ওঠেন তাহলে বাকি লোকেদের তুলনায় আপনি অনেক সময় পাবেন পুরো দিনটিকে এনজয় করার. চলুন বিষয়টিকে একটু সহজভাবে বুঝি. মনে করুন আপনি সকালে দু ঘণ্টার আগে ঘুম থেকে ওঠা শুরু করলেন. এবার আপনার মনে হবে যে দুঘন্টা আগে ঘুম থেকে উঠে কি হবে?

কিন্তু বন্ধু এই দু ঘন্টাকে যদি আপনি এক অর্থাৎ তিরিশ দিন দিয়ে multiply করেন তাহলে আপনি দেখবেন যে এক মাসে আপনি ষাট ঘন্টা extra পেয়ে যাচ্ছেন বাকিদের তুলনায়. আর সারা বছরে আপনি সাতশো কুড়ি ঘন্টা অর্থাৎ আরও একটি মাস আপনি extra পেয়ে গেলেন. মাত্র দু ঘণ্টা আগে ঘুম থেকে ওঠার ফলে. বাকি লোকেরা সারা বছরই বারোটি মাস পেল. কিন্তু আপনি এক বছরে তেরোটি মাস গেলেন দেখুন সামান্য দু ঘণ্টা আপনাকে এক বছরে বারো মাসের জায়গায় তেরোটি মাস পেতে সাহায্য করল. এবার প্রশ্ন হল সেই দু ঘন্টায় কি করবেন? এই সময়টিতে আপনি বহু ধরনের করতে পারেন. যেমন পড়াশোনা, meditation, yoga, physical exercise আপনার career planning এই সকল কাজগুলিকে আপনি সকালে এই দুই ঘন্টা সময়ের মধ্যে করতে পারবেন. আপনি হয়তো এটা জানেন না যে সারাদিনে চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে যে সকল কাজগুলিকে আপনি করেন,

সেই সকল কাজগুলির thirty পার্সেন্ট কাজ আপনি সকালে এই দুই ঘন্টা টাইমের মধ্যেই কমপ্লিট করতে তো সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠলে আপনার এই extra টাইম টিকে অবশ্যই কাজে লাগানো উচিত. সারাদিনে আপনি প্রচুর পরিমাণে ছোটাছুটি করতে থাকেন. তবুও অনেক ক্ষেত্রে আপনি কিছুতে টাইমই দিতে পারেন না, কিন্তু যখন আপনি সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠা শুরু করবেন, তখন আপনি বুঝতে পারবেন, যে দিনটি কত বড়. আর যখন আপনার কাছে extra টাইম থাকবে তখনি আপনি Extra ভাবনা ভাবতে পারবেন. আপনি আপনার লাইফ এর problems গুলিকে খোঁজার সময় পেয়ে যাবেন. এবং সাথে সাথে সেই problems গুলিকে solve করারও সময় পেয়ে যাবেন. যখন আপনি সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠার শুরু করবেন, তখন দেখবেন যে আপনার মধ্যে positive feelings এর পরিমাণ অনেক বেড়ে যাবে. এটি তো গেল science এর কথা. যদি আমরা একটু spirituality র দিকে নজর দিই তাহলে spirituality বলে যে সকালের সময়টি হলো এমন একটি সময় যখন আপনার mind এবং আপনার ব্রেন খুব powerful অবস্থায় থাকে.

সময়ে আপনি যে সকল কাজগুলি করবেন, এবং যে সকল ভাবনাগুলি ভাববেন, সেই সকল কাজ ও ভাবনাগুলি আপনার কাছে পজিটিভ ও মোটিভেশন হিসেবে কাজ করবে এই সময় আপনার ফোকা Power সব থেকে বেশি হয়. তাই সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠা আপনার অবশ্যই প্রয়োজন. দেখুন আমি জানি যে বেশিরভাগ লোকেরাই সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর তাদের মোবাইল নোটিফিকেশনসগুলি চেক করতে ভালোবাসেন. WhatsApp এবং Facebook এ good morning মেসেজ, Have a nice day মেসেজ. পাঠাতে ও দেখতে ভালোবাসে. আর সেই নোটিফিকেশন গুলি চেক করতে করতে ঘণ্টার ঘন্টা পার, কিন্তু যদি আপনি সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠেন তাহলে সেই সময় তো বাকিরা ঘুমাবে তাই আপনার distraction হওয়ার কোনো প্রশ্নই ওঠে না.

সকালের সময়টিতে পরিবেশ প্রকৃতি এতটাই শান্ত থাকে যে কোন ধরনের distraction এর কথায় ওঠে না. তাই এই সময়টিতে আপনি শান্তি মতো নিজের কাজগুলিকে করতে পারবেন. যদি আপনার physical health এর কথা বলি তাহলে সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠলে আপনার ব্লাড সুগার লেভেল কন্ট্রোল থাকে. Diabetes হওয়ার চান্সেস sixteen পার্সেন্ট কমে যায়. এর সাথে সাথে আপনার মেন্টাল হেলথ অর্থাৎ আপনার মুড আপনার এনার্জির মাত্রাও অনেক বেড়ে যায়. তো যদি আপনি আপনার লাইফের প্রতিটি মুহূর্তকে, সুন্দরভাবে উপভোগ করতে চান. যদি এই টাইম অর্থাৎ সময়কে পুরোপুরি ভাবে আপনার লাইফে কাজে লাগিয়ে নিতে চান. তাহলে সকালে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠা শিখে নিন. তো এই ছিল আজকের পোষ্ট। পোষ্টটি ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার অবশ্যই করবেন। ধন্যবাদ

Related Articles

Back to top button